ফজরের নামাজ নিয়ে ইসলামিক উক্তি, হাদিস ও স্ট্যাটাস

ফজরের নামাজ নিয়ে ইসলামিক উক্তি, হাদিস ও স্ট্যাটাস

ফজরের নামাজ নিয়ে অনেকে অনেক স্ট্যাটাস ক্যাপশন ছন্দ হাদিস ও ফজিলত সম্পর্কে খোঁজ করে থাকেন। ফজরের নামাজ সম্পর্কে এই পোষ্টের মাধ্যমে কিছু ফজরের নামাজ নিয়ে উক্তি, ফজরের নামাজ নিয়ে স্ট্যাটাস, ফজরের নামাজ নিয়ে হাদিস, ফজরের নামাজ নিয়ে ক্যাপশন ও ফজরের নামাজ নিয়ে কবিতা তুলে ধরা হবে। আশা করি আপনাদের ভালো লাগবে তাহলে দেরি না করে দেখে নিন ফজরের নামাজ সম্পর্কে উক্তি, স্ট্যাটাস, ক্যাপশন ও হাদিস গুলো। 

ফজরের নামাজ নিয়ে উক্তি

১. জান্নাত খুঁজতে যেও না, ফজরের নামাজ দিয়ে দিনটা শুরু কর জান্নাত তোমার জন্য অপেক্ষা করবে। 

২. ঘুমের চেয়ে নামাজ উত্তম, তার চেয়েও বেশি উত্তম হচ্ছে ফজরের নামাজ। 

৩. শীতের সকালে যে ব্যক্তি ফজরের নামাজ জামাতের সহিত আদায় করল, সে যেন জান্নাতে একটি বাগান তৈরি করল। 

৪. ফজরের নামাজ পড়ে যে ব্যক্তি তার দিন শুরু করে, সে দিনটাই যেন খুব সুন্দর কাটে। 

৫. ভোরের সৌন্দর্য যে কতটা সুন্দর তা শুধু ফজরের নামাজ পড়া লোকগুলোই বলতে পারবে। 

৬. ফজরের নামাজের দুই রাকাত সুন্নতের যে পরিমাণ সওয়াব পাওয়া যায়, এই পৃথিবীর সবচেয়ে ধনী ব্যক্তির যে পরিমাণ টাকা রয়েছে তার চেয়েও বেশি ধনী ফজরের নামাজের দুই রাকাত সুন্নত নামাজ পড়া ব্যক্তি। 

ফজরের নামাজ নিয়ে ইসলামিক উক্তি

১. প্রত্যেক ওয়াক্ত নামাজেরই বিশেষ ফজিলত রয়েছে, কিন্তু ফজরের নামাজের মধ্যে সবচেয়ে বেশি ফজিলত রয়েছে। 

২. ফজরের দুই রাকাত ফরজ নামাজ দুনিয়ার মধ্যে যা কিছু আছে তার সবকিছুর চেয়ে শ্রেষ্ঠ। 

৩. ফরজের নামাজ পড়ে দিন শুরু করলে সে দিনটাই রহমতের হয়ে যায়। 

৪. আল্লাহ তাআলা বলেছেন,”যে ব্যক্তি ফজরের নামাজ পড়ে দিন শুরু করলো তার দায়িত্ব আমি নিজে নিয়ে নেই”। 

৫. ফজরের নামাজের যে কত ফজিলত তা যদি বান্দা তোমরা বুঝতে তাহলে কখনোই ফজরের নামাজ ছাড়তে না। 

৬. পাঁচ ওয়াক্ত নামাজের সবচেয়ে ফজিলতপূর্ণ ওয়াক্ত হচ্ছে ফজর এর ওয়াক্ত। 

ফজরের নামাজ নিয়ে স্ট্যাটাস

* নিঃসন্দেহে বলা যায় যে ফজরের নামাজ দুনিয়ার সবকিছুর চেয়ে উত্তম। 

* সৃষ্টিকর্তা বলেছেন,”তোমরা ফজরের নামাজ দিয়ে দিন শুরু করো তোমাদের রিজিক এর ব্যবস্থা আমি করে দেবো”। 

* ফজরের নামাজ দিয়ে দিন শুরু কর, শয়তান তোমাদের ধারের কাছে আসতে পারবে না। 

* আল্লাহ তাআলার কাছে সবচেয়ে প্রিয় বান্দা সেই, যে ব্যক্তি ফজরের নামাজ দিয়ে তার দিন শুরু করে। 

* একমাত্র নামাজি ব্যক্তি পারেন মহান আল্লাহ তায়ালা এর কাছে সরাসরি পৌঁছাতে। 

* ফজরের নামাজ যারা পড়ে তাদের রোগ ব্যাধি কম হয়। 

ফজরের নামাজ নিয়ে হাদিস 

হাদিসে ফজরের নামাজের বিশেষ তাগিদ রয়েছে ” যে ব্যক্তি ফজরের নামাজ পড়বে সে আল্লাহর জিম্মায় থাকবে ” । 

হাদিসে আরো বলা হয়েছে যে,” ফজরের নামাজ আদায়কারী মানুষ জান্নাতি হিসেবে আখ্যায়িত করা হবে”। 

সারারাত নামাজ পড়ে যে ফজিলত পাওয়া যায়, ফজরের দুই রাকাত সুন্নত নামাজে তার চেয়ে বেশি সওয়াব পাওয়া যায়। 

যে ব্যক্তি জামাতের সহিত ফজরের ফরজ নামাজ আদায় করবে কেয়ামতের দিন তারা নূর হয়ে দেখা দিবে।

একজন ব্যক্তির দিনের প্রতিটি মুহূর্ত রহমতে বর্ষিত হয় তখনই, যখন সে ফজরের নামাজ পরে। 

ফজরের নামাজের পরে ভোরের আলো বাতাস যে কতটা স্বাস্থ্যের জন্য ভালো, তা শুধু ফজরের নামাজি ব্যক্তিরাই ভালো বলতে পারবে। 

ফজরের নামাজের ছন্দ

এই শীতের ভোর রাতে যে ব্যক্তি আরামের ঘুমকে হারাম করে ফজরের নামাজ আদায় করবে, তার জন্য জাহান্নাম হারাম হয়ে যাবে। 

আলসি কইরেন না উঠুন আল্লার বান্দারা, ফজরের নামাজটা পড়ে নিন। 

হয়তো আজ সময় আছে ফজরের নামাজটা পড়ে নেওয়ার, কাল সেই সময়টা নাও থাকতে পারে। 

ওরে তোরা আজান শুনে আর দেরি করিস না, অলস ভেঙে বিছানা ছেড়ে চলে আয় ফজরের নামাজ পড়তে। 

ফজর দিয়ে শুরু আর ইশা দিয়ে শেষ আল্লাহ তাআলার বিধান দিয়ে দিন চলে যায় বেশ। 

এপার থেকেই যদি জান্নাতের চাবি নিয়ে যেতে চাও তাহলে ফজরের নামাজ পড়ে নাও। 

ফজরের নামাজ নিয়ে কবিতা

ফজরের কবিতা

হুমায়ুন আহমেদ

ফজরের নামাজের আযান শুনে,

থেকো না আর বিছানাতে। 

ফজরের নামাজের আযান শুনে,

আল্লাহর নামে আঁখি খুলে চলে যাও মসজিদে;

ফেরেশতাগণ দাঁড়িয়ে আছে তোমার অপেক্ষাতে। 

ফজরের আযান শুনে তোরা আর থাকিস না রে ঘরে,

শয়তানকে লাথি দিয়ে চলে যায় মসজিদে। 

ফজরের ওই মিনার চূড়ায় আসমানী ধনী শোন,

শোন রে আসমানী ধনী শোন। 

ফজরের ওই আযান শুনে,

থাকিস না আর ঘরে চলে যা মসজিদে;

হিংসা, ক্রোধ আর পাপ মুক্ত করতে। 

ওরে তোরা থাকিস না আর,

ফজরের আজান শুনে ঘরে। 

ফজরের নামাজ

মিয়া সাইফুদ্দিন

নিঝুম রাতের শেষ প্রহর,

পৃথিবী যখন ঘুমে বিভোর। 

রাত জাগা পাখিটি সারারাতের কোলাহল শেষে,

ক্লান্ত হয়ে ঘুমিয়ে পড়ে আপনালয়ে। 

ভোরের পাখিরা তখনো উঠেনি জেগে,

মসজিদ হতে ভেসে আসে সুমধুর সুরে শাশ্বত বাণী। 

আসসালাতু খাইরুম মিনান নাউন,

নিশ্চয়ই ঘুমের থেকে সালাত উত্তম।

উঠ মমিন, আর নয় ঘুম সালাত তোমাকে ডাকে, 

ওঠাও তোমার পরিজন, তোমার সন্তানাদী;

তোমার বিবি, ওঠাও প্রতিবেশী, সালাত আদায়ের ত্বরে। 

মুনাফিক নও, মুসলিম তুমি, 

প্রমাণ কর সিজদাকারীর মাঝে। 

সর্বশেষ কথা

ফজরের নামাজের থেকে উত্তম কোন জিনিস হতে পারে না। ফজরের নামাজ নিয়ে যে কথাগুলো লেখা হয়েছে যদি পড়ে থাকেন তাহলে আশা করি ভালো লাগবে। যদি ভালো লেগে থাকে তাহলে অবশ্যই শেয়ার করবেন আপনার আপন মানুষদের মাঝে। এবং এরকম আরো বিভিন্ন ধরনের পোস্ট পেতে সাইটটিতে ভিজিট করুন আশা করি এরকম আরো অনেক পোস্ট পেয়ে যাবেন।